By | May 28, 2021

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শেষ ম্যাচে আজ মাঠে নামে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করে শ্রীলঙ্কা। পাওয়ার প্লেতে ৭৭ রান তুলে নেয় দুই ওপেনার দানুশকা গুনাথিলাকা ও কুশল পেরেরা।

তবে ১২তম ওভারে এসে দুই উইকেট হারিয়ে বসে শ্রীলঙ্কা। তাসকিন আহমেদের বলে বোল্ড হয়ে সাঝঘরে ফিরেন গুনাথিলাকা। ৩৩ বলে ৫ চারে ও ১ ছয়ে তিনি ৩৯ রান করেন।

ওই ওভারেই উইকেটের পেছনে মুশফিকের হাতে তালুবন্দি হয়ে রানের খাতা না খুলে ফিরেন পাথুম নিশাঙ্কা। দ্রুত ২ উইকেট হারালেও ক্রিজে অন্য প্রান্তে অবিচল থাকেন অধিনায়ক কুশল পেরেরা।

দ্রুত রান করে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। ৪৪ বলে ৮ চারে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। কুশল মেন্ডিসকে নিয়ে দারুণভাবে এগিয়ে যেতে থাকেন কুশল পেরেরা। তবে সেই জুটিতেও আঘাত হানেন তাসকিন।

৩৬ বলে ১ ছয়ে ২২ রান করে তামিম ইকবালের হাতে ক্যাচ দিয়ে তাসকিনের তৃতীয় শিকার হন কুশল মেন্ডিস। এদিকে তিনবার জীবন পেয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন কুশল পেরেরা।

সাকিবের ওভারে দুইবার জীবন পাওয়ায় পর ৯৯ রানে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাত ফসকে বেঁচে যান তিনি। তিনবার জীবন পেয়ে ৯৯ বলে ১০ চার ও ১ ছয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি।

তবে শেষ পর্যন্ত ১২২ বলে ১১ চার ও ১ ছয়ে ১২০ রান করে শরিফুল ইসলামের বলে রিয়াদের হাতে তালুবন্দি হয়ে ফিরেন কুশল পেরেরা। এরপর ৭ রান করে শরিফুলের থ্রোতে রান আউটের শিকার হয়ে ফিরেন নিরোশান ডিকভেলা।

ডিকভেলা সাঝঘরে ফেরার পর ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাকে নিয়ে রানের চাকা এগিয়ে নিতে থাকেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। তবে তাদের জুটিকে বড় ইনিংস খেলতে দেননি তাসকিন।

১৪ রান করে মিরাজের হাতে ধরা পড়ে তাসকিনের চতুর্থ শিকার হন হাসারাঙ্গা। অন্যদিকে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন ধনাঞ্জয়া। ৬৪ বলে ৪ চারে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি।

শেষ পর্যন্ত ধনাঞ্জয়ার অপরাজিত ৫৫ ও রামেশ মেন্ডিসের ৮ রানে নির্ভর করে ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৮৬ রান করে শ্রীলঙ্কা। শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইটওয়াশ করতে বাংলাদেশের দরকার ২৮৭ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.